কৃষকের ঘর থেকে তিন কিং কোবরা সাপ উদ্ধার করলো সাপুরে। সাপুরের এমন দুঃসাহসী ভিডিও দেখে বিস্মিত পুরো নেটদুনিয়ায়। ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন:এই পৃথিবীতে বহুজাতি প্রাণী আছে। একেক রকম প্রাণীর বৈশিষ্ট্য একেক রকম। জলজ প্রাণী কিছু স্থলজ প্রাণী এবং কিছু পাখি আকাশে স্বাধীনভাবে ঘুরে বেড়ায়। তবে একেক প্রাণী ধর্ম একেক রকম। জলজ প্রাণী জলে বাস করে অথচ প্রাণী জলে বাস করে।

কিন্তু যেসব প্রাণী আকাশে স্বাধীনভাবে উড়ে বেড়ায় সেই সব প্রাণি কিন্তু গাছের উপরে বাসা বেঁধে থাকে।পৃথিবীতে কিছু প্রাণী আছে গৃহপালিত আবার কিছু প্রাণী আছে খুবই ভয়ঙ্কর। বর্তমানে ভয়ংকর কিছু প্রাণী মানুষ গৃহপালিত পশু হিসেবে পালন করে। তবে ওরা বড় হয়ে যেন মালিকের ছোবল মারে। তাদের মধ্যে সাপ অন্যতম।এমন কিছু দেশ আছে যেখানে সাপের সাথে মানুষের বসবাস।

আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল ইত্যাদি এসব দেশের মানুষ সাপ পুষে বড় করছে। এ যেন সাপ তাদের নিত্যদিনের সঙ্গী। তবে এসব গুলো খুব বড় জাতের সাপ হয় যেমন পাইথন।এশিয়া মহাদেশের সবগুলো বেশিরভাগ বিষধর সাপ হয়। এশিয়া মহাদেশে মানুষ সাপ পুষে এমনটা যেন আশ্চর্য।এই এশিয়া মহাদেশের গ্রামগুলোতে সাপ যেন মানুষের ঘরে ঢুকে মানুষকে নিত্য নতুন ভাবে ভয় দেখিয়ে থাকে।

সাপকে সবাই ভয় পায় কারণ তাদের ছোবলে মানুষ মারা যাবে এটাই স্বাভাবিক।পৃথিবীতে এমন কিছু সাপ আছে যাদের এক ছোবলেই মানুষের মৃত্যু নির্ঘাত। আবার এমন কিছু সাপ আছে যাদের বিষে কোন কাজ হয়না। আবার এমন কিছু সাপ আছে তাদের ছোবল মারতে হয় না তাদের লেগে থাকা বিষ দিয়ে মানুষকে কুপোকাত করে ফেলে।

আজ আপনাদের একটি জনপ্রিয় ভাইরাল হওয়া ভিডিও সম্পর্কে বলবো। ভিডিওতে তিনটি কোবরা সাপ কে উদ্ধার করলো এক সাপুড়ে।ভারতের উত্তর প্রদেশে এলাকার একটি গ্রামের ছোট্ট একটি ঘরের চাঁদের কোনা সাপগুলো আটকা পড়ে।

বাড়ির মালিক সাপগুলো কে দেখে সাপুরি কে খবর দেয়।সাপগুলো নাগিন ছিল।সাপগুলো বেশ বড় ছিল আর এমনভাবে সাপগুলো মাটির কর্নারে লুকিয়ে ছিল যে বের করাই কঠিন হয়ে পড়েছিল। একসময় সাপগুলো কে বের করার জন্য চেষ্টা করা হলে সাপগুলো রেগে যায়। এবং ছোবল মারার কায়দা সুযোগ খুঁজে বেড়ায়।

পড়ে যখন সাপ ধরার লোহা দিয়ে সাপকে ধরার চেষ্টা করছিল তখন সাপের মাথার অংশ ঘরের বাহিরে বের করে দেয়। সাপগুলো পালাবার চেষ্টা করেছিল ঠিক এই সময়ে সাপুড়ের তার নিচের অংশটি ধরে ফেলে। অংশটি ধরার ফলে সাপটি নড়াচড়া করতে পারছে না।এইঅবস্থায় সাপের মাথার অংশ বাহিরে বের করার ফলে লোকটি বাহিরে গিয়ে মাথার অংশটি ধরার চেষ্টা করে।

যে সময় সাপটিকে ধরে ঠিক সেইসময় সাপটি সাপুড়ের হাতে ছোবল মেরে বসে।যদিও সাপটির তেমন বিষ ছিল না তবুও সাপের বিষ মুখের মাধ্যমে বের করে নেয়।এরপর সাপগুলোকে একটি প্লাস্টিকের কৌটার মধ্যে নেয়ার চেষ্টা করে।একসময় সাপ গুলোকে কৌটা ভরে ফেলে কোটার মুখটি আটকে দিয়ে সাপটিকে সাপুরে নিয়ে যায়।

সাপুড়ে সেই সাপটিকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় ।উদ্ধারকাজ চালিয়ে কোবরা টিকে লোকালয় থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে রেখে আসা হয়। যাতে করে সাপটি আর লোকালয় বা কারো বাসস্থানে আসতে না পারে। সাপটি যেন জনসমাগমে আর কখনো আসতে না পারে।আপনারা যদি এই অসাধারণ ভাইরাল ভিডিওটি দেখতে চান তাহলে নিচের লিংকে ক্লিক করে দেখতে পারবেন।

আরো পড়ুন

লোহা ও পাইপ দিয়ে অভিনব কৌশলে তৈরি করল ঘুঘু ধরার ফাঁদ! সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: :প্রতিটি প্রানীই শিকার করার জন্য তার নিজস্ব কায়দা ব্যবহার করে। বাস্তুসংস্হানের প্রতিটি প্রানীকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *