খেয়েই ঘুমাতে যান? অজান্তেই ডেকে আনছেন বিপদ

খেয়েদেয়ে বিশ্রাম করা যেতেই পারে। তবে খাওয়ার পর পরই দ্রুত ঘুমাতে গিয়ে কিন্তু নিজেরই ক্ষতি করছেন। বিশেষজ্ঞদের কথায়, খাওয়ার পর ঘুমাতে চলে যাওয়ার অভ্যাস এখন বাড়ছে। এর একটা কারণ হতে পারে হাতে একদমই সময় নেই বা মানুষ খুবই ক্লান্ত। তাই খেয়েদেয়ে সরাসরি চলে যেতে হচ্ছে ঘুমের দেশে। কারণ তখন না ঘুমালে হয়তো পরের দিন সকালে থেকে যাবে ঘুমের রেশ। সেই রেশ ধরেই করতে হবে কাজ। তাই সকলেই চাইছেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ঘুমাতে চলে যেতে।

তবে তাড়াহুড়ার কথা বাদ দিলেও এক অংশের মানুষ আবার নিজেদের অভ্যাসের বসেই খাওয়ার পরপরই ঘুমিয়ে পড়েন। তবে যে কারণেই হোক না কেন, খাওয়ার পর সরাসরি ঘুমাতে গেলে হতে পারে নানান ক্ষতি। তাই সচেতন থাকা ছাড়া কোন উপায় নেই।

কী কী ক্ষতি হতে পারে?

>খাবার খাওয়ার পরপরই ঘুমাতে গেলে বেড়ে যায় রক্তে সুগারের মাত্রা। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, রাতে খাওয়ার পরই শুতে গেলে শরীরে সুগারের মাত্রা খুব বেশি পরিমাণে বেড়ে যায়। তাই আমাদের সচেতন থাকা ছাড়া উপায় নেই।

>রাতে খাওয়ার পরই শুতে গেলে শরীরে বিপাক ক্রিয়া সঠিকভাবে হয় না। ফলে শরীরে শক্তি উৎপাদনে ঘাটতি দেখা যেতে পারে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। তাই আমাদের প্রত্যেককেই থাকতে হবে সতর্ক।

>খাওয়ার পরই ঘুমাতে গেলে শরীরের ভিতরে হজমপ্রক্রিয়া সঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। ফলে খাদ্য হজমে সমস্যা দেখা দেয়। ফলে বদহজম, অ্যাসিডিটি লেগেই থাকে।

>খেয়েই ঘুমাতে গেলে ভাববেন না ভালো ঘুম হবে। বরং এক্ষেত্রে ঘুম ভালো মতো না হওয়ার আশঙ্কাই প্রবল। তাই প্রথম থেকেই সচেতন থাকুন। ভালো ঘুমাতে চাইলে খাওয়ার পরই ঘুম নয়।

>বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, খাওয়ার পর সঙ্গে সঙ্গে শুয়ে পড়া মানুষের ওজন বৃদ্ধি হয় দ্রুত।

কী করবেন?

খাওয়ার পরই ঘুমাতে যাওয়া যাবে না। খাওয়ার অন্তত ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা বাদেই ঘুমাতে যান। তবেই শরীর থাকবে ভালো। আর দুপুরে ঘুম তো একেবারেই নয়। দুপুরেরে ঘুম শরীরের জন্য খুবই ক্ষতিকারক।

সূত্র: এই সময়

আরো পড়ুন

একদম মানুষের মত দারুন ভাবে গান গাইছে শালিক পাখি, মানুষের সাথে বলছে নানান সব কথা, তুমুল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: আদিকাল থেকেই বিভিন্ন প্রাণী মানুষের দাসত্ব গ্রহণ করে আসছে, মানুষ বিভিন্ন কায়দায় বিভিন্ন ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.