জেনে নিন পেট পরিস্কারের এক ঘরোয়া টোটকা, সবার কাজে লাগবেই, জেনে নিন অবশ্যই

কথায় আছে স্বাস্থ্যই সম্পদ।আর এই স্বাস্থ্য যদি ভালো না থাকে তাহলে কেবল শরীরের সমস্যা দেখা যায় সেটা নয় ।তারই সঙ্গে মেজাজ খিটখিটে হয়ে যায়,আর যার ফলে মানসিক শান্তি নষ্ট হয়।অল্প কথাতেই রেগে যাওয়া মেজাজ দেখানো প্রভৃতি দেখা যায় ।আর অনেক সময় এও দেখা যায় আমাদের শরীরে ছোট ছোট সমস্যা গুলিকে পাত্তা দিন যার ফলে সমস্যা আরও দৃঢ় হয়।এর মধ্যে একটি হল পেটের সমস্যা বা কোষ্ঠকাঠিন্যতা।

শরীর থেকে যদি বর্জ্য পদার্থ বেরিয়ে না যায় সেখান থেকে দেখা যায় একাধিক সমস্যা ।তাই সকালে পেট পরিস্কার হওয়া ভীষন দরকার ।অনেকের পেটে সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তারের দেওয়া অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ খেয়ে তাদের পরামর্শ মেনে চলেন।কিন্তু তাতে কাজ হয় ঠিকই ,তবে মলাশয়ের ভীতর থাকা খারাপের সাথে ভালো ব্যক্টেরিয়াও মারা যায়।এতে শরীরের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।

প্রাচীনকালে কিছু হলে আগে ঘরোয়া উপায়ের মাধ্যমে রোগী সুস্থ করা হত।আর এই ধারা এখনো কিছুটা অব্যহত আছে।কিছু ক্ষেত্রে অ্যালোপ্যাথি চিকিৎসা নেওয়ার আগে ঘরোয়া কিছু উপায়ের সাহায্য নেওয়া উচিত ।ঘরোয়া ওষুধের উপাদান গুলি শরীরের কোনো ক্ষতি করেনা । কিন্তু অত্যাধিক পরিমানে খাওয়া অ্যালোপ্যাথি ওষুধে শরীরের ওপর খারাপ প্রভাব পড়ে।

তাই আগে ঘরোয়া জিনিস ব্যবহার করে সুস্থ হয়ে উঠুন ।আমাদের ঘরেই এমন কিছু জিনিস আছে যা দিয়ে লিভার ও মলাশয় পরিষ্কার করা সম্ভব আর এই সব ঘরোয়া পথ্য গুলি ভালো ব্যাকটেরিয়া দের বিনাশ করেনা।এমনিতে ইসবগুল বা সহজপাচ্য খাবার শাক,মোচা এই ধরনের খাদ্য পেট পরিস্কার করতে সক্ষম হয়।তবে এই পথ্য টি আপনাকে আরও বেশী সাহায্য করবে দ্রুত আরোগ্য লাভে। জেনেনিন কী কী উপাদানের সাহায্যে এটি বানাবেন-

ক। উপকরন-1. আপেলের রস হাফ কাপ 2.লেবুর রস হাফ কাপ 3.সামুদ্রিক লবন হাফ চামচ 4.আদার রস এক চামচ 5.অর্ধেক গ্লাস জল খ। পথ্যটি খাওয়ার সময়-প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ,দুপুরে খাবার আগে,রাতে শুতে যাওয়ার আগে দু চামচ করে খেয়ে নিন।এই মিশ্রণটি খেতে শুরু করলে পেট পরিস্কার হতে শুরু করবে।

খ।ওষুধ খাওয়ার সময়কার –
টানা সাতদিন ধরে তিনবার করে এই মিশ্রণ খেতে হবে।

গ।ওষুধ বানানোর পদ্ধতি – প্রথমে গরম জল ফুটিয়ে নিন।এরপর ফুটন্ত জলে পরিমানমতো লবন মিশিয়ে নিন।লবন জলে গুলে গেলে আচ্ বন্ধ করে নিন।এবার একে একে আপেলের রস লেবুর রস আদার রস ভালো করে মেশান।এবার মিশ্রনটিকে অন্য পাত্রে রেখে ঠান্ডা করুন।

মাথায় রাখবেন যদি প্রতিদিন এটি খাওয়ার সময় সাথে দুপুরে এক বাটি দই খেতে পারেন তবে ভালো কাজ দেবে ।শরীরে হজম ক্ষমতার বৃদ্ধি হয়।ঘ।খেয়াল রাখবেন-যখন পেটের সমস্যা দূর হতে থাকবে তখন স্যালাড খাবেন।এ রকম সমস্যা দেখা দিলে ধূমপান মদ্যপান থেকে দূরে থাকা বাঞ্ছনীয়।

আরো পড়ুন

বাজার থেকে এনে খেয়ে ফেলছেন টুকটুকে লাল লিচু, হতে পারে এই মারণ রোগ!

কপার, ক্রোমিয়াম, ক্যাডমিয়ামের মতন ক্ষতিকর ধাতু মিশে ওই রাসয়নিক তৈরি হয়। যা শরীরে প্রবেশ করে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.