প্রাকৃতিক কাজ সারতে বাথরুমে গিয়ে ছিল যুবতি। তখনই ঘটল অঘটন, বেরিয়ে আসল আস্ত বড় কিং কোবরা! সাপুরে এসে উদ্ধার করল যুবতিকে। তুমুল ভাইরাল সেই ভিডিও

strong>নিজস্ব প্রতিবেদন:কোবরা সাপ গ্রাম্য জনজীবনকে অতিষ্ট করে ফেলেছে। তারা যেখানে সেখানে যখন তখন ঢুকে পড়ছে। গ্রামের গৃহবধূদের তারা প্রতিনিয়তই ভয় লাগছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তারা রান্নাঘরের লুকিয়ে থাকে। এবং রান্নাঘরে যখন গৃহবধূরা কাজ করতে যায় তখন তাদেরকে বিভিন্ন ভয় দেখায়। তারা তাদের ফনা দিয়ে ভয় দেখায় এবং ছোবল দিতে যাচ্ছে।

অনেক গ্রামের গৃহবধূ আছে যারা প্রায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন এবং আহত হয়ে হাসপাতালে কাতরাচ্ছে।আমরা সকলেই জানি সাপ কি বিষাক্ত প্রাণী আর এই সাপের বিষয়ে মানুষ মারা যায়। যদিও কিছু কিছু সাপের বিষে মানুষ আহত হয় মারা যায় না। তবুও সাপের বিষ নিয়ে মানুষ অনেক ভয় থাকে কারণ এমন কিছু সাপের বিষ আছে যা মানুষকে বিকল করে দেয় স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে না।

আর কোবরা সাপ গুলো জঙ্গল থেকে সহজে লোকালয়ে চলে আসে। সাপ একটি মারাত্মক প্রাণী এটি মানুষের জীবন নিতে পারেন। আমাদের চারপাশে রয়েছে অনেক অনেক ধরনের সাপ। কোন কোন সাপে মানুষকে কামড় দিলে মানুষ মরে যায় আবার কোন কোন সাপ মানুষকে কামড় দিলে মানুষ মারা না যায়।

আবার কোনো কোনো সাপ এত বিষাক্ত যে মানুষকে কামড় দেওয়া মাত্রই মানুষ মারা যায় কয়েক মিনিটের মধ্যে। বিষাক্ত সাপের মধ্যে রয়েছে কিং কোবরা স্থান প্রাইস আরো ইত্যাদি। সাপ আনাচে-কানাচে জঙ্গলে বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া যায় বিশেষ করে যেখানে মানুষের যাতায়াত খুবই কম সেখানে সাপ অধিক পরিমাণে পাওয়া যায়।গরম বা বর্ষার সময় সাপ জঙ্গল থেকে বেরিয়ে আসে এবং পুকুর থেকে মানুষের বাড়িতে উঠে যায়।

খুবই গরম পড়ে সাপ গরম সহ্য না করতে পেরে মাটির নিচে বাস জঙ্গলের মধ্যে থেকে বেরিয়ে এসে মানুষের বাড়িতে অথবা তাই রাস্তায় উচে যায়।আাবর বর্ষার সময় সাপ পানি থেকে মানুষের বাড়িতে চলে আসে।এছাড়া সাপ খাদ্য সংগ্রহ করার জন্য মানুষের বাড়ি ঘরে ঢুকে খাদ্য সংগ্রহ করার চেষ্টা করেন। সাপের প্রয়োজন খাদ্য তাই খাদ্যের জন্য সাপ মানুষের বাড়িতে ঢুকে যায়।তখন সাপ মানুষকে কামড়ে দিতে পারে।

আমার দেখামতে অনেক সাপ বিভিন্ন জায়গায় সাপ মানুষকে কামড়ে দিয়ে সাথে সাথে মেরে ফেলেছে।কিছুদিন আগে ইন্টারনেটে একটি ভিডিও ভাইরাল হয় সেখানে দেখা যায় একটি যুবতি প্রাকৃতিক কাজ করতে গিয়ে একটি সাপ দেখতে পায়।যদি যুবতি না দেখতে পারতো তাহলে তাকে এই সাপ কামড় দিয়ে মেরে ফেলতো কেননা সাপটি ছিলো খুবই বিষাক্ত। সাপটি দেখতে ছিল কালো রঙ্গের এবং মাঝে মধ্যে সাদা সাদা ফটো।

এ ধরনের সাপ সচরাচর মানুষের বাড়িতে কম দেখা যায়।সাপটি বাথরুমের কমটের মধ্যে লুকিয়ে ছিল যখন যুবতি প্রাকতিক কাজ করতে যায় তখন সাথে সাথে সাপটি বের হয়ে আসে।প্রথমে যুবতি সাপটি দেখে ভয় পেয়ে যায় তার পর চিৎকার শুরু করে দেয় যুবতি ।কিছু কখনের মধ্যে আশেপাশে লোক জমা হতে থাকে এবং এটি বের করার জন্য চেষ্টা করে।

কেউ ভয়ে সামনে যেতে পারতেছে না তাই সবাই চিন্তা করে দেখলো তাদের দ্বারা এই সাপ টি বের করা সম্ভব হবে না তাই যুবতি এক মিলিটারির ব্যাক্তি সাপ ধরার জন্য ডাকলো।মিলিটারি লোক আসার পর অনেক সময় চেষ্টা করলো সাপটি বের করার জন্য কিন্তু কিছুতেই পারতেছিলো না।

অবশেষে লোকটি তার এক যন্ত্র দিয়ে সাপটি বের করে আনে। সাপটি ছিল অনেক লম্বা এবং মোটা। সাপটি লেজ কাটা ছিল শুনছি লেজ কাটা সাপ না কি মানুষকে কাড়র দিয়েছে তাই লেজ পড়ে গিয়েছে।এই ধরনের মারাত্মক সাপ থেকে সবাই দূরে থাকবেন।কেননা এটি কামড় দিলে আপনার জীবনও চলে যেতে পারে।

আরো পড়ুন

বৃদ্ধ চাচার চায়না জালে ধরা পরল হাওরের অদ্ভুত ধরনের বড় বড় মাছ। এসব মূল্যবান মাছ ভাগ্য বদলে দিল বৃদ্ধ লোকটির, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সেই আদিম যুগ থেকেই মানুষ জেলের কাজ করে আসছে। আদিম যুগে যখন মানুষ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *