বন থেকে লোকালয়ে ছুটে এল একদল হাতি, ভয়ে কাঁপছেন গ্রামবাসী, দেখুন সেই হারহিম করা ভিডিও, ব্যাপক ভাইরাল ইন্টারনেটে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গতকাল ভারতের আসামে একটি গ্রামে একদল হাতি এসে কি কান্ড করলো কাঁপছে গ্রামবাসী হাতি লোকালয়ে এসে পুরা ধান ক্ষেত নষ্ট দিল। তেড়ে আসছে লোকালয়ে মানুষের দিকে মানুষ ভয় পাচ্ছে এই ভিডিওটি ধারণ করে একজন মানুষ ইন্টারনেটের দিয়ে দিয়েছে।

ইন্টারনেটের দেওয়ার সাথে সাথে ভিডিওটি আজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। যে এই ভিডিওটি ধারণ করেছে সে অনেক রিক্স নিয়ে এই ভিডিওটি ধারণ করে ইন্টারনেটে দিয়েছে । যাতে করে আমরা হাতিটির কাণ্ডকারখানা দেখতে পারি।

মূলত হাতী এসেছে জঙ্গল থেকে। জংলি হাতি এসে কৃষকদের ধানের ক্ষেত অন্যান্য ফসল নষ্ট করে দিয়েছে। ক্ষেতেরে ফসল নষ্ট না করতে পারে। জন্য অনেকে জমি হাতিটিকে দূরে সরানোর চেষ্টা করছে । কিন্তু হাতিটি দূরে সরাতে দূরের কথা যারা দূরে সরাতে যাচ্ছে তাদের কাছে দেয়ে আসছে। হাতিটিকে ফসলি জমি থেকে দূরে রাখা যাচ্ছে না।

হাতিটি সব ফসল নষ্ট করে দিচ্ছে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে হাতিটি তার সুর দিয়ে কিশকের জমির সকল ফসল উপড়ে ফেলছে কৃষকরা নির্বাক হয়ে দেখছে কিছু করার নেই তাদের ।তারা অনেক চেষ্টা করেছে হাতিটিকে দূরে সরানোর কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে হাতির বলের কাছে।

তিনি তাদের কাছে তেড়ে আসছে এবং হাতিটি তার হুঙ্কার ছাড়ছে। হাতিটি জমি নষ্ট করে ক্ষান্ত হয়নি। বরং লোকালয়ে এসে মানুষকে ভয় দেখাচ্ছে। মানুষের ঘরবাড়ি নষ্ট করে দিচ্ছে।গ্রামে একটি থমথমে পরিস্থিতি বিরাজমান করছে । সবাই ভয়ে শিক্ত হয়ে আছে। আতঙ্কে তারা ঘর থেকে বের হতে পারছে না।

হাতিটি বড় বড় গাছ গুলোকে উপড়ে ফেলছে। হাতিটির শক্তির সবাই যেন ব্যর্থ। প্রতিটি মানুষ নিজেদের সর্বনাশ দেখছে হাতির সামনে কিছুই করতে পারছে না কেন না তারা নির্বাক হয়ে চেয়ে আছে। হাতিটির এই পাগলাটে কর্মকাণ্ডে গ্রামের প্রতিটি মানুষ নিস্তব্দ।

প্রায় ঘন্টা খানিক পর ফরেস্ট অফিসার এসে হাতিটিকে উদ্ধার কাজ চালায় এবং উদ্ধার করে ।এরপর হাতিটাকে বনের নিয়ে রেখে আসা হয়। হাতির এই ভিডিও ইউটিউবে বিরাট ভাইরাল হয়। অনেক মানুষ এই ভিডিও দেখার আগ্রহ প্রকাশ করে। চাইলে আপনি ও দেখে নিতে পারেন সেই ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি নিচেই দেওয়া হইল।

আরো পড়ুন

গ্রামে চিতা বাঘের উৎপাতের কারনে কেউ রাস্তাঘাটে চলাফেরা করতে পারেনা। যুবকের অসাধারন বুদ্ধিতে অবশেষে ধরা পড়ল সেই বাঘটি। পুরস্কৃত করা হলো যুবকে। ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন:আমার দাদুর তখন সাতাশ আঠাশ বয়স , বিয়ে করেন নাই তখনো , বংশের চাকুরি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *