মাঝ আকাশে পাখির রাজা ঈগল এবং হিংস্র চিতা বাঘের ভয়ংকর লড়াই! এমন দুর্লভ লড়াই মন কাড়ল নেটিজেনদের, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

আকাশের সব চেয়ে ভয়ংকর প্রাণী হলো ঈগল।আর ঈগল ঘন্টা প্রায় তিনশ কিলো মিটার গতিতে উড়তে পারে।শুধু তাই নয় এই পাখির দৃষ্টি-শক্তি এতটা যে তারা পাচ কিলোমিটার শিকার কে দেখতে পায়।বন্ধুরা আমরা আজ এই ভিডিও তে দেখব ঈগল পাখির ভয়ংকর ও অসাধারণ দৃশ্য যা দেখে আপনি আমার মত চমকে যাবেন ।ঈগলের শক্তিশালী মাংশপেশী লম্বা টানা যা আকাশে উড়তে দ্রুত গতিতে পারে।

এই বিশেষ গুনের জন্য ঈগল খুব সহজে শিকার করতে পারে ।এবং এই পাখিটি এত ভয়ংকর যে কখনো কখনো মানুষকে ও শিকার করে ফেলতে পিছ পা হয় না।বন্ধুরা ভিটিও শেষে ঈগলের ভয়ংকর শিকার দেখে আপনি চমকে উটবেন।এই ঈগলের নজর পরছে বনের প্রাণীর উপর যাকে সে দুপুরের খাবার ভানাতে চাই।দেখুন শেষ পর্যন্ত বনের বাচ্চাটিকে শিকার করতে আসে এবং খুব সহজে বাচ্চাটিকে নিয়ে উড়ে যায়।

এই দৃশ্যটি খুভ অদবুদ যে বনের বাচ্চাটি এত বারি তা ভয়ংকর ঈগলের কাছে খুব সহজ মনে হয়েছিল।একটি খুর্দাত ঈগল পাহাড়ে উপর বসে শিকর খুজছে হঠাৎ তার চোখ পড়ল চিতার সাথে খেলা করার বাচ্চার উপর ।যারা আকারের তুলনায় ছোট হলেও এদের স্বীকার করার ধরন পৃথিবীর সবথেকে নিষ্ঠুর এবং ভয়ংকর তম। না জানি পাখিগুলো আকারে আরেকটু বড় হলে মানুষের কি অবস্থা করতো।

তাহলে চলুন বন্ধুরা দেখে আসি পৃথিবীর সবথেকে ভয়ঙ্কর শিকারি দুটি পাখিকে । সেক্রেটারি বার্ডঃ নাম শুনে অদ্ভুত মনে হতেই পারে, কিন্তু এই পাখির নামের পিছনের গল্প খুবই জনপ্রিয়। এই পাখিকে ইউরোপিয়ানরা 1800 সালে খুঁজে বের করেছিল।সেই সময় সেক্রেটারি পদে নিযুক্ত মানুষগুলো এক বিশেষ ধরনের পোশাক পড়তো।

তারা ধূসর রঙের সাথে হাঁটু পর্যন্ত এবং কালো রং-এর প্যান্ট পরতো এছাড়াও হাঁসের পালক কানে লাগিয়ে রাখতো। তাদেরকে দেখতে অনেকটাই এই পাখির মতো লাগতো এই পাখির ডানা ধূসর রংয়ের সেটা অনেকটাই এদের মত দেখতে লাগে এবং এদের মাথায় ডানা থাকে যেটা কলমের মতো দেখতে লাগে।

আর এই পাখির পা পর্যন্ত কালো লোমে ঢাকা থাকে যেটা প্যান্টের মতোই লাগেহঠাৎ চিতার একটি বাচ্চা চিতার কাছ থেকে দুরে সরে যায় আর সুযোগ পেয়ে খুর্দাত ঈগল হাত ছাড় করতে চায়নি তার পর শিকার করার জন্য প্রস্তুত হয় এবং ইগল খুব সহজে চিতার বাচ্চাটি কে নিয়ে উড়ে যায় ।

আর অন্যদিকে চিতা তার বাচ্চাকে না পেয়ে খুজতে খুজতে দেখে ঈগল তার বাচ্চাকে গাছের ডালে বসে ভক্ষণ করছে কিন্তু মা চিতা তা দেখে সহ্য করতে না পেরে সরাসরি গাছে উটতে শুরু করল আর আন্য দিকে ঈগল শিকার নিয়ে ব্যস্ত তার পিছন দিকে মা চিতা ঈগলের পিছন থেকে দরে তার গার মটকে দিল।

তার সন্তনকে হত্যার পতিশোধ নিল।কিন্তু বাচ্চাকে ফিরে পায় না মৃত্য আবার ভিডিওতে দেখা যায়, পানিতে ভাসছে একটি ঈগল৷ দেখে মনে হচ্ছিল কোনোভাবে আহত হয়ে পানিতে পড়ে গেছে৷ এরপর ডানা ঝাপটে তীরের দিকে আগাতে শুরু করে ঈগলটি, আর তখনই বোঝা যায় এই শিকারী পাখিটি নিজের পা দিয়ে আটকে রেখেছে বড় আকারের একটি মুস্কি মাছ৷

আরো পড়ুন

জরুরী টাকার প্রয়োজনে,খুব সুন্দর অবস্থানে, দারুন কম দামে বাড়ি বিক্রি, রইলো ফোন নম্বর সহ বাড়ির ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন:বর্তমান সময়ে জমি কিনে বাড়ি নির্মাণ করা অনেকটা দুরূহ ব্যাপার। একে তো জমির আকাশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *