মাত্র ৭দিনেই ঘাড়ের কালো দাগ দূর করার ৪টি ঘরোয়া পদ্ধতি

আমরা মুখের যত্নের পাশাপাশি হাত ও পায়ের যত্ন নিতে কখনো ভুল করিনা। কিন্তু আমাদের শরীরের একটা অংশ অবহেলায় পড়ে থাকে। সেটা হল আমাদের ঘাড় ও পিঠ। আমরা বাহিরে থেকে ফিরে যখন আয়নায় মুখ দেখি, তখন আমরা শুধু মুখের ক্ষতিটাই দেখতে পাই এবং সেটারই যত্ন নেই।

ফলে ঘাড় ও পিঠের খোলা অংশ আস্তে আস্তে মুখের তুলনায় কালো হয়ে যেতে থাকে এবং একসময় এই রঙের পার্থক্য খুব বেশি চোখে পড়ে। এই সমস্যা সমাধানে কিছু ঘরোয়া উপায় দেয়া হল।আমন্ডঃ ত্বকের যত্নে আমন্ডের কোনো তুলনা হয় না।

এর বিভিন্ন উপাদান ত্বকের পুষ্টি যোগায় এবং ত্বকের রঙ হালকা করতে সাহায্য করে। আমন্ড ঘন্টাখানেক ভিজিয়ে রেখে দিন। এবার এটি বেটে নিন। এবার ১ চা চামচ আমন্ড বাটা, ১ চা চামচ গুঁড়ো দুধ আর ১ চা চামচ মধু ভাল করে মিশিয়ে ঘাড়ে লাগিয়ে রাখুন আধা ঘন্টা।এরপর ধুয়ে ফেলুন।

যদি আস্ত আমন্ড না পান তবে আমন্ড পাউডারও ব্যবহার করতে পারেন। ভাল ফল পেতে চাইলে সপ্তাহে অন্তত তিনদিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন।

অ্যালোভেরাঃ ত্বকের কালো ভাব দূর করতে অ্যালোভেরার জুরি নেই। আপনি এটা সরাসরি লাগাতে পারেন। অ্যালোভেরার নির্যাস বের করে নিন এবং এটি সরাসরি আপনার ঘাড়ের ত্বকে লাগান। ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং ধুয়ে ফেলুন। ভাল ফল পেতে হলে রোজ একবার ব্যবহার করুন।

বেসনঃ বেসন, টকদই আর সামান্য মধু মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরী করুন। এটি ঘাড়ে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর হাত দিয়ে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখুন কেমন পরিস্কার দেখাচ্ছে।
আলুর রসঃ আলুতে আছে প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদান। তাই আলুর রস ঘাড়ের কালো দাগ দূর করতে ভূমিকা রাখে। আলু কুচি অথবা আলুর রস ঘাড়ে লাগিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে ঘাড়ের কালচে ভাব দূর হয়ে যাবে।

আরো পড়ুন

বাজার থেকে এনে খেয়ে ফেলছেন টুকটুকে লাল লিচু, হতে পারে এই মারণ রোগ!

কপার, ক্রোমিয়াম, ক্যাডমিয়ামের মতন ক্ষতিকর ধাতু মিশে ওই রাসয়নিক তৈরি হয়। যা শরীরে প্রবেশ করে ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.