রং দেওয়া আইসক্রিম না খেয়ে খুব সহজেই চকলেট দিয়ে বাড়িতে তৈরি করুন আইসক্রিম, রইল ভিডিও সহ বিস্তারিত প্রতিবেদন!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ফ্যাক্টরিতে তৈরি হওয়া প্রায় সব জিনিসই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে তৈরি হয়ে থাকে এটি যেমন আমাদের শরীরের জন্য হানিকারক তেমন ছোট ছোট বাচ্চাদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ফ্যাক্টরিতে তৈরি হওয়া আইসক্রিম গুলোতে ব্যবহার হয়ে থাকে নানা ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল ও রং যেগুলো খেলে বাচ্চা হয়ে পড়বে অসুস্থ। ফ্যাক্টরিতে খাবারের মধ্যে ব্যবহৃত এ রংগুলো আমাদের বিভিন্ন ধরনের জটিল রোগের কারণ হয়ে থাকে এই রঙগুলো হয়ে থাকে মাত্র মাত্রাতিরিক্ত ক্ষতিকর এই রং গুলো আমাদের দেহের জন্য অনেক ক্ষতি বয়ে আনে।

এই ক্ষতিকারক রাসায়নিক ক্যামিকেল গুলো আমাদের দেহে প্রবেশ করলে আমাদের কিডনি বিকলাঙ্গ হয়ে যাবে এর পাশাপাশি আমাদের লিভার নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ফ্যাক্টরিতে তৈরি হওয়া মুখরোচক ও মজাদার আইসক্রিম গুলোর ব্যবহৃত রং আমাদের জীবনকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তাই চলুন জেনে নেই কিভাবে বাসায় স্বাস্থ্যকর পরিবেশ আইসক্রিম তৈরি করা যায়। আইসক্রিমগুলো কোন ধরনের রং ছাড়াই তৈরি করা সম্ভব হয়ে ওঠে।

এই আইসক্রিম গুলোতে কালার দেওয়ার জন্য দোকানে থাকা কালার চকলেট ব্যবহার করা হবে। যা দিয়ে আইসক্রিম কি খেতে আরো সুস্বাদু লাগবে। বাড়িতে দোকানের মত আইসক্রিম তৈরি করার জন্য কিছু নিয়ম স্টেপ বাই স্টেপ অনুসরন করলেই ঠিক দোকানের মত একটি পারফেক্ট আইসক্রিম আমরা বাসায় তৈরি করে নিতে পারব। আইসক্রিম তৈরির ক্ষেত্রে অবশ্যই আমার দেওয়া রেসিপি হুবহু অনুসরণ করলেই আপনার আইসক্রিম দোকানের মত পারফেক্ট এবং মজাদার হবে।

আইসক্রিম তৈরির উপকরণ সমূহ:দুই কালারের চকলেট, চিনি, লেবু, আইসক্রিম তৈরির প্রণালী: প্রথমে প্যাকেট থেকে চকলেট গুলোকে প্যাকেট থেকে বের করে একটি বাটিতে রাখতে হবে। সবগুলো চকলেট প্যাকেট থেকে বের করা হয়ে গেলে এরপর সে চকলেট গুলো কে কোন ভারী জিনিস দ্বারা চকলেট গুলো কে ভেঙে দিতে হবে। চকলেট গুলো কে ভেঙে একটি পাত্রে উঠিয়ে রাখতে হবে। এরপর চুলার মধ্যে আগুন দিয়ে এরমধ্যে একটি হাঁড়ি বসিয়ে দিয়ে তারপর এরমধ্যে পরিমাণ মত পানি ঢেলে দিতে হবে।

পানি দিয়ে ধুয়ে দেওয়া হয়ে গেলে এরমধ্যে স্বাদমতো চিনি ব্যবহার করতে হবে। যে যেরকম মিষ্টি খেতে পছন্দ করে ঠিক সে অনুযায়ী পানির মধ্যে চিনি দিয়ে দিতে হবে। চিনি গুলো যখন পানির সাথে মিশে গলে যাবে তখন এর মধ্যে কিছু টা লেবুর রস দিয়ে দিতে হবে যাতে করে পানি এবং চিনির মিশ্রণ টি দলা পাকিয়ে না যায়। চিনি মিশ্রিত সেই পানির মধ্যে এবার গুঁড়ো করে রাখা চকলেট গুলো দিয়ে দিতে হবে। চকলেট গুলোকে ভাল করে চিনি মিশ্রিত সে পানির সাথে মিশিয়ে নিতে হবে।

চকলেট গুলোকে দিয়ে সে চিনি মিশ্রিত পানি অনেকক্ষণ ফুটাতে হবে যখন চিনি এবং চকলেটের পানিগুলো ফুটের উপরে ফেনার মত হবে তখন সেই ফেনাগুলো অন্য একটি পাত্র দ্বারা ফেলে দিতে হবে। এভাবে কিছুক্ষণ চিনি মিশ্রিত পানি এবং গলিত চকলেট গুলোকে অনেকক্ষণ ফুঁটিয়ে ফুঁটিয়ে জাল করে নিতে হবে। অন্য আরেকটি রংয়ের চকলেট টিকে ঠিক একই পদ্ধতিতে তৈরি করে নিতে হবে। চিনি পানি এবং চকলেট মিশ্রনটিকে চুলা থেকে নামিয়ে কিছুক্ষন ঠান্ডা করে নিতে হবে।

মিস্টার গুলো ঠান্ডা হয়ে গেলে মিশ্রনটিকে আইসক্রিম তৈরির যারে অথবা ক্লাসে কিংবা চা খাওয়ার ওয়ান টাইম গ্লাস এটি দিলে নিতে হবে। মিশ্রণটি ঢেলে দেওয়া হয়ে গেলে গ্লাসে থাকা সেই মিশ্রণ গুলোকে ডিপ ফ্রিজে প্রায় এক দিনের মতো রেখে দিতে হবে। মিশ্রণটি বরফ জমাট বেধে গেলে আইসক্রিম তৈরি হয়ে যাবে। অনেক দিন ফ্রিজে স্টোর করে রেখে এই আইসক্রিম খাওয়া যাবে। এভাবে আইসক্রিম তৈরি করলে ঠিক দোকানের মতো দেখতে এবং খেতে হবে আইসক্রিম।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

আরো পড়ুন

এই পদ্ধতিতে সবচেয়ে সেরা স্বাদে রান্না করুন চিকেন কড়াই, এই যাদুকরি চিকেন একবার খেলে সারা জীবন মনে থাকবে!

নিজস্ব প্রতিবেদন: মুরগির মাংস দিয়ে অনেক ধরনের খাবারের আইটেম হয়ে থাকে। যারা মুরগির মাংস খেতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.