রয়েছে চোখ বাধা ধরতে হবে হাঁস, গ্রামের উঠোনে আয়োজন করা হল মজার এক খেলা, কানার হাঁস ধরা খেলাটি তুমুল ভাইরাল নেটদুনিয়ায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানুষ সামাজিক জীব। সমাজে বেঁচে থাকার জন্য মানুষকে নানা ধরনের কাজকর্ম করতে হয়। কাজ কর্মের দ্বারা অর্জিত অর্থ দাঁড়াই তাকে বেঁচে থাকতে হয়। তবে মানুষ শুধু তার কাজকর্ম নিয়ে বেঁচে থাকতে পারে না। কাজকর্মের পাশাপাশি মানুষের প্রয়োজন চিত্তবিনোদন। কেননা এসব চিত্তবিনোদন মানুষকে মানসিক প্রশান্তি যোগায় যা তার কাজ করার স্পৃহা কে বাড়িয়ে দেয়। চিত্তবিনোদনের বিভিন্ন উপকরণের মধ্যে খেলাধুলা সর্বশ্রেষ্ঠ। খেলাধুলার মাধ্যমে মানুষের মধ্যে দেশপ্রেম জাগ্রত হয়, তাদের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি হয়।

এক সময় আমাদের গ্রাম বাংলায় নানা ধরনের ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা প্রচলিত ছিল।প্রত্যন্ত গ্রামে নানা ধরণের খেলাধুলার আয়োজন করা হতো।এর মধ্যে গোল্লাছুট,বরফপানি,মোরগ যুদ্ধ, ডাংগুলি,লাঠি খেলা,বাঘছাগল,বৌছি,বেগুনপেটা,ডালিম ডালিম,গাছটোকা সহ নানা ধরণের খেলা খুবই জনপ্রিয় ছিলো গ্রাম বাংলায়। তবে বর্তমানে আমাদের দেশে খেলাধুলার ধারণায় অনেক পরিবর্তন এসেছে। আমরা আমাদের প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলা গুলো ভুলতে বসেছি। এগুলো এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে।

এখন গ্রামে গঞ্জে খোঁজ করেও এসব খেলাধুলার খুব একটা দেখা পাওয়া যায় না। বর্তমান সময়ে এসব প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী খেলাধুলার স্থান দখল করে নিয়েছে ফুটবল ক্রিকেট ভলিবল হকি সহ নানা ধরনের আধুনিক খেলাধুলা।বর্তমানে ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা তাদের অবসর টাইমে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মাধ্যমে ব্যস্ত থাকছে।তারা নানা ধরনের ভার্চুয়াল খেলাধুলায় মেতে থাকছে।তবে সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে একটা ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যেখানে একটি ব্যতিক্রম ধর্মী প্রাচীন খেলার দেখা পাওয়া গেছে।

বর্তমান যুগ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের যুগ।মানুষ তার দিনের অবসর সময় এখানেই কাটায়।এসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা ধরনের ভিডিও শেয়ার করা হয়ে থাকে।যারমধ্যে নানা ধরণের খেলাধুলা,পশুপাখি,হাস্য কৌতুকের ভিডিও থাকে।ভিডিওগুলো একটু ভিন্ন ধর্মী হলে মুহুর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায়। সম্প্রতি এমনই এক ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যা কিছুটা ভিন্ন ধর্মী। সে সম্পর্কেই জানাবো আপনাদের।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে ভাইরাল হওয়া ভিডিও টি খেলাধুলার ভিডিও। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে একদল মহিলা চোখে কাপড় বেঁধে হাঁস ধরছে। এটি গ্রাম বাংলার একটি অন্যতম ভিন্নধর্মী প্রাচীন খেলা। এ খেলায় খেলায় সুবিধার্তে চারদিকে জাল দিয়ে বেড়া দিয়ে নেওয়া হয়েছে। জালের মধ্যে পাঁচজন মহিলা চোখে কাপড় বেঁধে খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন। তারা একটি ছেড়ে দেয়া হাসকে ধরার চেষ্টা করছে। চারদিকে অনেক দর্শক তাদের উৎসাহ দিচ্ছেন। তারা হর্ষধ্বনি দিচ্ছেন।

মহিলাদের খেলাধুলার অংশটুকু শেষ হলে আবার পুরুষের অংশ শুরু হতে দেখা যাচ্ছে ভিডিওতে। তারাও চোখে কাপড় বেঁধে হাঁস ধরা খেলায় মত্ত। খেলাটির সঠিক নাম জানা না থাকলেও ইতিকে কানার হাট তলা হিসেবে বিবেচিত করা যায় যেহেতু সবাই চোখ বেঁধে অন্ধ অবস্থায় হাঁসটিকে ধরার চেষ্টা করছে, হাঁস কিন্তু প্রাকৃতিক ভাবে অতি চালাক হয়ে থাকে সবাই নিজেদের মেধা খাটিয়ে হাঁসটিকে ধরার চেষ্টা করলেও ফাঁকি দিয়ে আসি বারবার পালিয়ে যাচ্ছে এতেই তৈরি হচ্ছে আগ্রহ এবং সবাই উৎফুল্ল হয়ে উঠেছে না করতে পারায়।

খেলাটিতে সকলেই মেতে উঠেছে এবং গ্রামবাসী সবাই একসাথে আনন্দ উপভোগ করছে এই ভিডিওটি ইউটিউবে শেয়ার করার পরপরই তুমুল ভাইরাল হয়ে যায় সবাই কমেন্ট সেকশনে নেটিজেনদের বিভিন্ন রকম মন্তব্য লক্ষ করা গেছে সবাই তাদেরকে অনেক ধন্যবাদ দিয়েছে এবং অনেকে বলেছেন আসলে খেলাটা খুবই মজার মজার ছিল।

অনেকে ভিডিও সম্পর্কে নানা রকম মন্তব্য করছেন। আবার অনেকেই ভিডিওটি শেয়ার দিচ্ছেন। আপনাদের দেখার সুবিধার্থে নিম্নে ভিডিওটি দিয়ে রেখেছি আশা করি আপনারা খুব আনন্দ পাবেন।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

আরো পড়ুন

মাত্র 4 বছরের বাচ্চা পেশাদারদের মত তবলা বাজান। অবিশ্বাস্য এই ভারতীয় শিশুর দক্ষতা দেখে বিশ্বজুড়ে প্রশংসা নেটিজসদের। ভাইরাল ভিডিও

<strong>নিজস্ব প্রতিবেদন:</strong>ভারতে ভট্টাচার্যি বাড়িতে দুর্গাপূজায় ঢাকের বাজনা হতো। সেই ঢাকের ছন্দে বাড়ির ছোট্ট মিলনের সেকি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *