সন্ধ্যা বেলায় ঘরের মধ্যে হাজির বিরাট আকারের সাপ, তা দেখে বাড়ির সবাই আতঙ্কে পরে যায়, সাহসী যুবক সাপটিকে উদ্ধার করল, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সাধারণত বর্ষার সময় অর্থাৎ মে, জুন এবং জুলাই এই তিন মাস সাপের দংশন এবং তার কারণে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ে। বন্যপ্রাণী বিশেষ করে সাপ এবং সাপের দংশনজনিত মৃত্যু এবং শারীরিক ও মানসিক আঘাত নিয়ে কাজ করেন এমন বিশেষজ্ঞরা বলছেন- চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাজশাহী এবং ময়মনসিংহ এলাকায় সাপের কামড় এবং তা থেকে মৃত্যুর ঘটনা বেশি ঘটে। দেশে যেসব সাপ রয়েছে, তার মধ্যে সাত থেকে আট প্রজাতির অত্যন্ত বিষধর। এদের কামড়ে বেশি মানুষ মারা যায়। বিষধর সাপের আমাদের জন্য অনেক ক্ষতিকারক।

উচিত সাপ দেখলে সাবধান হয়ে থাকা তা না হলে যে কোন সময় যে কোন বিপদ হতে পারে। অবলম্বন না করলে আমাদের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। তাই কখনো হাসি ঠাট্টার ছলে বা সাহস দেখাতে গিয়ে সাপ ধরতে যাবেন না। এতে আপনার জীবন যেতে পারে। সাপে কাটার ঘটনা গ্রামাঞ্চলে, এবং কৃষি সংশ্লিষ্ট এলাকায় বেশি ঘটে থাকে। স্থলভূমিতে থাকা সাপ পায়ে বেশি দংশন করে। সাপে আমাদের সবারই ভয় লাগে। শহর এবং বিশেষ করে গ্রাম্য অঞ্চলে প্রায়ই সাপের কামড়ে মৃত্যুর কথা শোনা যায়। আমাদের রাজ্যে অনেক প্রকারের বিষধর সাপ দেখা যায়।

পশ্চিমবঙ্গের প্রধানত ৫টি সাপের কামড়ে মানুষের মৃত্যু হয়। সাপটি বাদামী বা জলপাইয়ের সাথে সবুজ এবং কালো এবং হলুদ বা সাদা ক্রসব্যান্ড রয়েছে। এর পেট ক্রিম বর্ণযুক্ত বা হলুদ। “চোখের” পরিবর্তে মাথার উপরের পিছনে দুটি বড় আকারের স্কেল এবং শেভ্রন ঘাড়ের স্ট্রাইপের সাহায্যে কিং কোবরাটি সত্য কোবরা থেকে আলাদা করা যায়। কিং কোবাররা সাপ ছানাদের দ্বারা ব্যবহারের জন্য সুপরিচিত। কোবরা কামড় অত্যন্ত বিরল, তবে কামড়ের বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাপ জড়িতদের জড়িত। কিং কোবরা ভেনম নিউরোটক্সিক, প্লাস এতে হজম এনজাইম রয়েছে।

বিষটি 30 মিনিটের মধ্যে বা এমনকি একজন প্রাপ্তবয়স্ক হাতিটিকে কয়েক ঘন্টার মধ্যে হত্যা করতে পারে। মানুষের মধ্যে, লক্ষণগুলির মধ্যে তীব্র ব্যথা এবং ঝাপসা দৃষ্টি অন্তর্ভুক্ত যা তন্দ্রা, পক্ষাঘাত এবং শেষ পর্যন্ত কোমা, কার্ডিওভাসকুলার পতন এবং শ্বাস প্রশ্বাসের ফলে মৃত্যুর দিকে অগ্রসর হয়। দুই ধরণের অ্যান্টিভেনম উত্পাদিত হয় তবে সেগুলি ব্যাপকভাবে পাওয়া যায় না। থাই সর্প চারাররা অ্যালকোহল এবং হলুদ মিশ্রণ পান করে। ২০১২ সালের একটি ক্লিনিকাল স্টাডি যাচাই করা হলুদ কোব্রা বিষের সাথে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রতিরোধের সম্মান দেয়।

চিকিত্সা না করা কোবরা কামড়ের মৃত্যুর হার 50 থেকে 60% অবধি, সাপটি বোঝায় যে সাপটি কামড়ানোর সময় প্রায় অর্ধেক সময় বিষ দেয়। আমরা ভিডিও টি তে দেখতে পাই সন্ধ্যা নামতেই একটি কিং কোবরা একটি বাড়িতে আসে। সবাই আতংক হয়ে পড়ে। তারপর একটি সাহসী বালক সাপটিকে বের করে একটি বস্তায় ভড়ে দেয়। একবার ভেবে দেখুন তো কিং কোবরা সাপ এসে যদি আপনার বাড়িতে হাজির হয় তাহলে আপনার কেমন লাগবে। নিশ্চয়ই ভয় পাবেন হ্যাঁ ভয় পাওয়াটা আসলে স্বাভাবিক।

একজন সাহসী বালক এসে সাপটিকে বস্তায় ভরে রাস্তায় ফেলে দেয় কিন্তু আপনি যেন আবার এই ভিডিও দেখে সাহস দেখাতে যাবেন না। এতে করে হীতে বিপরীত হতে পারে আপনার বিপদ হতে পারে। সাহসী বালকের ভিডিওটি দেখতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই নিচের লিংকে ক্লিক করতে হবে। বালকটির দেখলে আপনি নিজেও অবাক হয়ে যাবেন। আজ এই পর্যন্তই। আশা করি আমাদের এই ভিডিওটি আপনার অনেক ভালো লাগবে। এরকম আরও নতুন নতুন ভিডিও পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

আরো পড়ুন

ডোবার মধ্যে হাটতে গিয়ে লংকা কান্ড, ঘাসের আবরন টান দিতেই বেরিয়ে আসল মাছের ঝাক, তুমুল ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: গ্রাম্য পরিবেশে মাছ ধরতে কার না ভালো লাগে। যদি হাটতে গিয়ে মাছ পাওয়া ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.