সিসেন্ট ও বালি দিয়ে খুব সহজে তৈরি করুন এই চুলা, বন্যা বা বৃষ্টির দিনে ভীষণ কাজে লাগবে, রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি !

নিজস্ব প্রতিবেদন: রান্নার কাজে সবসময় চুলার ব্যবহার রয়েছে চুলা ছাড়া রান্নার কাজ প্রায় অসম্ভব। শহর থেকে গ্রাম প্রায় সকল পরিবেশে চুলার প্রয়োজনীয়তা বিদ্যমান। শহরে প্রায় সকলেই গ্যাসের চুলায় রান্না বান্না করে থাকে। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায় গ্যাসের সংকট। যে সময় গ্যাসের সংকট দেখা দেয় তখন রান্নাবান্না না করে থাকতে হয় শহরের মানুষের। চুলার অভাবে তারা তাদের পরিবারের জন্য রান্না করতে পারে না।

এমনকি গ্রামের এরকম সংকট দেখা দিতে পারে। সাধারণত গ্রামের রান্নাঘর বাইরে হওয়া কারণে বৃষ্টি বা বন্যার সময় চুল গুলো ভিজে যায় তাই রান্না করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। এমন চুলা সংকট থেকে রক্ষা করার জন্য সহজ পদ্ধতিতে চুলা তৈরি করা যেতে পারে। যে চুলার সাহায্যে আপনারা আপনাদের নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ করতে পারেন। ঠিক তেমনি একটি চুলা হচ্ছে,সিমেন্ট ও বালু দিয়ে তৈরিকৃত চুলা। খুব সহজেই এই চুলা তৈরি করা সম্ভব।

মাটির তৈরি চুলা বন্যায় বা বৃষ্টিতে নষ্ট হয়ে যায় কিন্তু সিমেন্ট বালু দিয়ে তৈরি চুলা কখনো নষ্ট হবে না এবং আমাদের প্রয়োজন অনুযায়ী আমরা আমাদের খাদ্য তৈরি করে নিতে পারব বন্যার প্রতিকূল অবস্থায়। খুব সহজ পদ্ধতিতে বালি সিমেন্ট দিয়ে চুলা তৈরি করা সম্ভব। বিভিন্ন প্রতিকূল অবস্থায় এই চুলা দিয়ে রান্নাবান্না করা সহজ। খুব সহজেই সিমেন্ট বালু দিয়ে এই চুলাটি তৈরি করা সম্ভব। সাধারণ কিছু উপকরণ দিয়েই এই চুলাটি তৈরি করা যাবে।

চলুন জেনে নেই, কিভাবে তৈরি করতে হয় বালি সিমেন্ট দিয়ে চুলা টি। সিমেন্ট বালু দিয়ে তৈরি করন: প্রথমে একটি বসার মোড়া নিয়ে নিতে হবে। বসার মোড়া টির যে অংশগুলো ফাঁকা থাকে সে অংশগুলো শক্ত ফ্রম দাঁড়া আটকে নিতে হবে টেপ দিয়ে। মোরাটির ফাঁকা অংশ এমনভাবে আটকাতে হবে যাতে করে এর মধ্য দিয়ে ভারী তরল কোন কিছু বের হতে না পারে। এরপর পর্যাপ্ত পরিমান সিমেন্ট,বালু ও পানি দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরী করে নিতে হবে।

মিশ্রণটি এমনভাবে তৈরি করতে হবে যাতে করে মিশ্রণটি বেশি পাতলা না হয়, না হয় বেশি ঘন। বালু ও সিমেন্টের মিশ্রণ রাগারাগি এর মধ্যে কিছুটা শুকনো বালু দিয়ে নিতে হবে।এরপর সিমেন্ট বালু ও পানির মিশ্রনটিকে আগে থেকে তৈরি করে রাখা বসার মোড়া মধ্যে ঢেলে নিতে হবে। মোড়া তে অর্ধেক করে প্রথমে সিমেন্ট বালুর ও পানির মিশ্রণ দিতে হবে। এরপর মরার মাঝে ছোট করে কেটে নিয়ে একটি কলা গাছ দিতে হবে এবং কলাগাছের একপাশে আবার শক্ত ফ্রম দিয়ে দিতে হবে।

এরপর আবার পুরো মাটিতে বালু সিমেন্টের মিশ্রণটি ঢেলে নিতে হবে এমনভাবে মিশ্রণটি ঢেলে নিতে হবে যাতে করে মোড়ের মধ্যে কোন ফাঁকফোকর না থাকে। এরকম করে পুরো মনাটি সিমেন্ট বালু দিয়ে ভরে ফেলা হলে এর উপরে মাঝে ও চারপাশের কর্নারের কিছু জায়গা ফাকা রেখে ফ্রম দিয়ে দিতে হবে। ফাঁকা রাখা অংশে দিয়ে দিতে হবে তিনটি করে লোহার চেকন অংশ।

এরপর তৈরিকৃত চুলা টি কয়েক দিনের জন্য শুকাতে দিতে হবে। চুলা টি শুকিয়ে গেলে টেপ দিয়ে আটকানো ফ্রম গুলো আশেপাশে থেকে ছাড়িয়ে নিতে হবে। ফ্রম গুলো ছাড়িয়ে নেওয়া হয়ে গেলে মোড়া থেকে বালু সিমেন্টের আস্ত চুলাটি বের করার জন্য মরার মধ্যে কিছুটা গরম পানি ঢেলে দিতে হবে গরম পানি ঢেলে দিলে মোড়া থেকে আস্তে আস্তে করে আস্ত চুলাটি বেরিয়ে আসবে।

চুলাটি বেরিয়ে আসলে চুলার গায়ে থেকে একে একে সবকিছু ছাড়িয়ে নিতে হবে। চূড়াটির মাঝখান থেকে কলাগাছ কলা গাছটি বের করে নিতে হবে। এর পাশাপাশি এর এক পাশে থাকা ফ্রমের টুকরাও বের করে নিতে হবে। সবকিছু পরিষ্কার করে না হয়ে গেলে তৈরি হয়ে যাবে আমাদের কাঙ্খিত বালু সিমেন্টের সেই চুলাটি। এত সহজ পদ্ধতিতে বালু ও সিমেন্টের চুলা টি যেকোনো সময় কাজে লাগবে। বন্যার সময় কিছু হবে না এই চুলাটির।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

আরো পড়ুন

খালের মধ্যে বেতের তৈরি চালুনি দিয়ে পাতা হল মাছ ধরার ফাদ, অল্প সময় পরে প্রচুর মাছ ধরা পড়ল, অবাক করা মাছ ধরার ভিডিওটি তুমুল ভাইরাল।

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমরা বাঙ্গালীদের মধ্যে মাছ ধরতে পছন্দ করে না এমন মানুষ খুব কমই আছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.