বাবার মৃত্যুর সাড়ে ৫ ঘণ্টা পর কাঁদতে কাঁদতে মারা গেলেন ছেলে

হবিগঞ্জে মাত্র ৫ ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা-ছেলের মৃত্যু হয়েছে।বাবার লাশের পাশে বসে কাঁদতে কাঁদতেই মারা যান ছেলে।এ ঘটনায় মৃতদের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।মৃতরা হলেন- হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের মথুরাপুরের শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া ওরফে দিলু মাস্টার এবং তার ছেলে চিকিৎসক মো. রুবেল মিয়া। সোমবার তাদের দাফন করা হয়েছে।

রাজিউড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফয়জুল ইসলাম ফজল বলেন,দিলু মাস্টার দীর্ঘদিন শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন।বর্তমানে তিনি অবসরে ছিলেন।তার ছেলে মো. রুবেল মিয়া গ্রাম্য চিকিৎসক হিসেবে উচাইল বাজারে একটি ফার্মেসি চালাতেন। সোমবার দুপুরে জানাজা শেষে বাবা-ছেলেকে দাফন করা হয়েছে।

মৃতদের পরিবারের বরাত দিয়ে তিনি বলেন,রোববার দিলু মাস্টার হৃদরোগে আক্রান্ত হন।তাকে নিয়ে ছেলে রুবেল মিয়া সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান।সেখানে রোববার রাত সাড়ে ১০টায় দিলু মাস্টার মারা যান।রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে করে বাবার লাশ বাড়িতে নিয়ে আসেন রুবেল মিয়া।

বাড়ি ফেরার পর কান্নাকাটি করতে করতে তিনিও অজ্ঞান হয়ে পড়েন।দীর্ঘক্ষণ পরও জ্ঞান আ ফিরলে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে।
সেখানে চিকিৎসক রুবেল মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

আরো পড়ুন

বিবাহিত পুরুষদের লিখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার অনুরোধ রইল!

মানুষকে নিজের প্রতি আকর্ষিত করার তেমন কোনো রুলবুক নেই। কারণ ভিন্ন মানুষ ভিন্ন ভাবনার হন। …