যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে

নিজস্ব প্রতিবেদন: যে ১১টি লক্ষণ দেখলে বুঝতে পারবেন আপনার কন্যা সন্তান হবে- সব বাবা মায়েরাই তাদের সন্তানকে খুব ভালোবাসে। সবাই তার সন্তানের ভালো চায়। সকলেই নিজে’র সন্তানকে নিয়ে একটা স্বপ্ন দেখে। সন্তান জ’ন্ম
নেওয়ার আগে অনেকেরই জা’নার ইচ্ছা থাকে যে সেই সন্তান ছেলে হবে না মেয়ে ?
কিছু উপায় আছে যা অবলম্বন করলে জা’না যেতে পারে সেই সন্তান ছেলে না মেয়ে। চলুন সেগু’লি জে’নে নেওয়া যাক-

১। গর্ভাবস্থায় এমনিতেই সকালে মর্নিং সিকনেস অনুভূত হয়। বেশ অলস লাগে। যদি গর্ভে পুত্র সন্তান থাকে তাহলে কম অলসতা লাগে, আর কন্যা সন্তান থাকলে বেশি অলস মনে হয়।

২। আপনার চুল দেখে বোঝা যায় আপনি কন্যা সন্তান জ’ন্ম দেবেন নাকি পুত্র সন্তান। গর্ভাবস্থায় যদি আপনার চুল খুব পাতলা ও উজ্জলতাহীন হয়ে পরে তাহলে আপনি একটা ফুটফুটে কন্যা সন্তান জ’ন্ম দিতে
চলেছেন। আর আপনার গর্ভে পুত্র সন্তান থাকলে আপনার চুল আরো সুন্দর হয়ে উঠবে।

৩। আপনি গর্ভবস্থায় যখন ঘুমান তখন যদি নিজে’র অজান্তেই বেশিরভাগ সময় ডান দিক ফি’রে শুয়ে থাকেন তাহলে আপনার কোলে একটি কন্যা সন্তান আসতে চলেছে।

৪। গর্ভবস্থায় মেয়েদের অনেক কিছু খেতে ইচ্ছা করে। যদি আপনার মিষ্টি কোন জিনিস খেতে ইচ্ছা করে, যেমন চকলেট, মিষ্টি, আইসক্রিম তাহলে আপনি খুব শীঘ্রই এক কন্যা সন্তানের মা হতে চলেছেন। আর
আপনার যদি নোনতা খাবার খেতে ইচ্ছা করে তাহলে আপনার পুত্র সন্তান আসতে চলেছে।

৫। গর্ভবস্থায় মেয়েদের ইউরিনের পরিবর্তন দেখা যায়। যদি মাঝে মধ্যে প্রস্রাবের রঙ পালটে সাদা ঘোলাটে হয়ে যায় তাহলে আপনি এক কন্যা সন্তানের জ’ন্ম দিতে চলেছেন।

৬। প্র’সবের দিন যত কাছে আসে গর্ভবতী মহিলার স্ত’নের আ’কার তত বেড়ে ওঠে। সেই সময় বাম দিকের স্ত’ন যদি ডান দিকের স্ত’নের তুলনায় বেশি বড় হয় তাহলে যে সন্তান আ’সছে সে কন্যা সন্তান।

৭। আপনার তলপে’ট যদি সামনের দিক বেশি ভারী হয় তাহলে আপনার পুত্র সন্তান হবে, আর যদি মাঝের দিকে বেশি ভারী হয় তাহলে কন্যা সন্তান হবে।

৮। গর্ভবস্থা কালীন একটি গ্লাসে জল ও বেকিং সোডা নিন, তাতে আপনার একটু ইউরিন মেশান। যদি সেটা কোন বিক্রিয়া না করে তাহলে আপনার কন্যা সন্তান হবে, আর যদি সেটা বিক্রিয়া করে ফেনা ওঠে আর
ফিজি শব্দ হয় তহলে পুত্র সন্তান হবে।

৯। সাইকোলজি অনুযায়ী আপনার গর্ভবস্থায় যদি আপনার মন খুব ভালো থাকে, আপনি খুব শৃঙ্ক্ষলা পরায়ন থাকেন তাহলে আপনি কন্যা সন্তানের মা হবেন। আর আপনি যদি ক্লামজি মুডে থাকেন তাহলে আপনি
পুত্র সন্তানের মা হবেন।

১০। গর্ভবতী থাকা কালীন মেয়েদের শ’রীরে ঘন ঘন হরমোনাল পরিবর্তন হয়। তাই মুখে র‌্যাশ ব্রণ হয়। যদি বেশি পরিমানে ত্বকের স’মস্যা হয় তাহলে আপনার কন্যা সন্তান আ’সছে। ছেলে হলে ত্বকের কোন স’মস্যা থাকে না।

১১। অন্তসত্তা অব’স্থায় যদি পে’টর ওপর দিকটা উচু মনে হয় তাহলে কন্যা সন্তান হবে। আর নীচের দিকে মনে হলে পুত্রসন্তান হবে। কিন্তু এই পদ্ধতিগু’লি তে সব সময় যে ঠিক জা’না যাবে তা বলাও যায় না।

আরো পড়ুন

যুবকের নিজের খাটকেই বানিয়ে ফেললেন অ্যাকোরিয়াম। সিমেন্ট বালি আর কয়েক টুকরা কাচ দিয়ে বাড়িতে নিজেই তৈরি করুন মনের মতো অ্যাকোরিয়াম। রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি।

নিজস্ব প্রতিবেদন:সকলেই চায় নিজের বাড়িতে একটা অ্যাকোয়ারিয়াম থাকুক। কারণ একুরিয়ামের বিভিন্ন জাতের রঙিন মাছ এবং …