পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে নারী ইন্সপেক্টরের ধর্ষণ মামলা

জাতিসংঘ শান্তি মিশনে থাকাকালীন একজন নারী পুলিশ ইন্সপেক্টরকে ধর্ষণের অভিযোগে এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ওই নারী পুলিশ ইন্সপেক্টর বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন। বৃহস্পতিবার ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭ এ মামলাটি হয়েছে।
মামলার পর অভিযোগকারীর জবানবন্দি নেয়া হয়। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ এর ১ ধারায় মামলাটি করা হয়। অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা শান্তি মিশনে পুলিশের কন্টিনজেন্টের কমান্ডার ছিলেন। সেখানে অবস্থানের সময় এ ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।।

কয়েকটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে ওই পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় সম্পর্কে বলা হয়েছে, তার নাম মোক্তার হোসেন। তিনি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনর (পিবিআই) বাগেরহাট জেলার পুলিশ সুপার।

ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর আফরোজা ফারহানা মামলার সত্যতা নিশ্চিত রেছেন। মামলায় ওই নারী পুলিশ কর্মকর্তা অভিযোগ করেছেন, দুই বছর আগে তিনি সুদানে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন। তখন সুদানে কর্মরত ছিলেন এসপি মোক্তার। ২০১৯ সালের ২০ ডিসেম্বর এসপি মোক্তার হোসেন তাকে ধর্ষণ করেন। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সুদান ও বাংলাদেশে তাকে আরও কয়েকবার ধর্ষণ করেন মোক্তার হোসেন। মামলায় বাংলাদেশের কয়েকটি হোটেলের নামও উল্লেখ করা হয়। এ ছাড়া সুদানের খাতুর্মের একটি হোটেলে ধর্ষণ করা হয়েছে বলেও আবেদনে বলা হয়।

মামলায় বলা হয়েছে, ১২ এপ্রিল বাদী বিয়ে রেজিস্ট্রেশন ও নিকাহনামা করার কথা বলার জন্য রাজারবাগে আসামির বাসায় গেলে তাকে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মারধর করে তাড়িয়ে দেয়া হয়। মামলার আগে ওই নারী পুলিশ ইন্সপেক্টর পুলিশ বিভাগেও ধর্ষণের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেছিলেন বলে অভিযোগে বলা হয়েছে।

আরো পড়ুন

সুপার ধামাকা! ১২ জুলাই থেকে তুমুল সস্তায় মাত্র কয়েক দিনের সোনার কেনার মেগা সুযোগ

এই দুর্দান্ত সুযোগ বারবার জীবনে আসেনা, যাঁরা বিনিয়োগ করতে চান তাঁদের কাছে এই মুহূর্তটি অত্যন্ত ...