শাস্তি পেলেন শরিফুল, বহাল থাকবে ২৪ মাস,আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে

বয়সে তরুণ তাই আবেগটাও বেশি। কিন্তু একজন পেসারের মধ্যে এমন আবেগ থাকাটা ক্রিকেটীয় সভ্যতায় খুবই জরুরী। যার অভাব বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে বোলারদের মধ্যে সবসময়ই দেখা গেছে। কিন্তু এদিক দিয়ে ভিন্নরকম অনূর্ধ্ব ১৯ দল থেকে উঠে আসা পেসার শরিফুল ইসলাম। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপেও বোলার হিসেবে প্রতিপক্ষ ব্যাটারদের সাথে সবসময় চলতো তার চোখ রাঙ্গানি কিংবা স্লেজিং। তবে এবার জাতীয় দলে সেই কাণ্ড ঘটিয়ে পেলেন শাস্তি। দিয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অনুষ্ঠিত হওয়া তৃতীয় ম্যাচে মিচেল মার্শকে আউট করে ব্যতিক্রমী আগ্রাসী উদযাপন করে শাস্তি পেয়েছেন শরীফুল। ডিমেরিট পয়েন্ট ২৪ মাস পর্যন্ত বহাল থাকবে। তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে তিরস্কার করেছে আইসিসি। সেইসঙ্গে নামের পাশে যোগ হয়েছে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। ডিমেরিট পয়েন্ট ২৪ মাস পর্যন্ত বহাল থাকবে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের ১৮তম ওভারের ঘটনা। শরিফুলকে উড়িয়ে মেরে মোহাম্মদ নাঈমের হাতে ক্যাচ দেন মার্শ। ম্যাচে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় বাংলাদেশ। মার্শকে আউট করে তাই আগ্রাসী উদযাপন শুরু করেন শরীফুল। ব্যাটসম্যানের খুব কাছে গিয়ে তিনি চিৎকার করে নাচতে থাকেন।

শরীফুলের এই আচরণ ভালো চোখে দেখেননি আম্পায়াররা। তাই ম্যাচের চার আম্পায়ার শরীফুলে বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন। তাদের মতে, শরীফুলের আচরণ মার্শকে আগ্রাসী প্রতিক্রিয়া দেখানোয় প্ররোচিত করতে পারত। তাই শরীফুলের শাস্তি ঘোষণা করেন ম্যাচ রেফারি নিয়ামুর রশিদ। শরীফুল শাস্তি মেনে নেওয়ায় আনুষ্ঠানিক শুনানির প্রয়োজন পড়েনি।

আরো পড়ুন

সুপার ধামাকা! ১২ জুলাই থেকে তুমুল সস্তায় মাত্র কয়েক দিনের সোনার কেনার মেগা সুযোগ

এই দুর্দান্ত সুযোগ বারবার জীবনে আসেনা, যাঁরা বিনিয়োগ করতে চান তাঁদের কাছে এই মুহূর্তটি অত্যন্ত ...