আফগানিস্তানে আজ যা হচ্ছে, কাল তা আমার দেশেও হতে পারে: জয়া

আফগানিস্তানে তালেবান বাহিনী ক্ষমতা দখলের পর আফগান নারী চলচ্চিত্র নির্মাতা সাহারা কারিমি বিশ্ববাসীকে সরব হওয়ার আকুতি জানিয়েছে যে চিঠি লিখেছিলেন তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। আনন্দবাজার ডিজিটালকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে তিনি বলেছেন,

ওখানকার যত ছবি দেখছি, আমার ভেতরটা দুমড়েমুচড়ে যাচ্ছে। আসলে পুরুষতান্ত্রিক সমাজের আঙুল সব সময়েই ওঠে মেয়েদের দিকে। ঠিক কম্পাসের কাঁটার মতো তা ঘুরে যায় নারীজাতির দিকে। জয়া বলেন, সারাহ কারিমি যে আহ্বান জানিয়েছেন, আমি মন থেকে তাতে সায় দিচ্ছি। তার সঙ্গে আছি। দূর থেকে কতটা কী করতে পারব জানি না, আমার পক্ষে যদি কিছু করার সুযোগ আসে, নিশ্চয়ই করব।

এই অভিনেত্রী আরও বলেন, ওখানকার যে সব ছবি দেখছি, শিউরে উঠছি। বাংলাদেশ হোক, ভারত হোক বা বহির্বিশ্বের যে কোনো দেশেই মেয়েদের ওপর অত্যাচার হলে আমাদের সরব হতে হবে। দেশটা আমাদের থেকে দূরে ভেবে বসে থাকলে চলবে না।

আজকে যা ওখানে হচ্ছে, কাল তা আমার দেশে বা কলকাতায়ও হতে পারে। প্রসঙ্গত, পুরো আফগানিস্তানের দখল নিয়েছে তালেবান বাহিনী। দেশ ছেড়ে চলে গেছেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানিসহ মন্ত্রিপরিষদের অনেক সদস্য। যুদ্ধ শেষ বলে ঘোষণা দিয়েছে সশস্ত্র এ গোষ্ঠীটি।

জা’নেন কতদিন ফ্রিজে মাংস রাখা যায়? জে’নে রা’খুন কাজে আসবে:

অনেকেই চিন্তিত থাকেন কতদিন মাংস ফ্রিজে রাখা যায় সেটি নিয়ে। বিভিন্ন উপায়ে মাংস সংরক্ষণ করা যায়। তবে এমনভাবে সংরক্ষণ ক’রতে হবে, যাতে এর স্বাদ ও পুষ্টিগুণ বজায় থাকে। আবার একস’ঙ্গে প্রচুর মাংস সংরক্ষণ ক’রতে গিয়ে অনেকেই হিমশিম খেয়ে থাকেন। মাংস সংরক্ষণ করার আছে বিশেষ কিছু পদ্ধতি। জে’নে নিন কাঁচা মাংস কতদিন রাখা যায় এবং সংরক্ষণ করার পদ্ধতি স’স্পর্কে।

সংরক্ষণ পদ্ধতি: গরুর মাংস সংরক্ষণ করার আছে নানান পদ্ধতি। প্রচলিত পদ্ধতিগুলো হলো- ১. একস’ঙ্গে অনেক মাংস রান্নার পরে প্রতিদিন জ্বাল দিয়ে রাখা। ২. কাঁচা মাংস প্যাকেট করে ফ্রিজে ভরে রাখা। ৩. কড়া রোদে মাংস শুকিয়ে আর্দ্রতা কমিয়ে ফেলা। এটাকে মাংসের শুঁটকি বলা হয়ে থাকে আমাদের দেশে। ৪. মাংসে লবণ, ভিনেগার, মসলা মাখিয়ে রেফ্রিজারেটরে রাখলে ভালো থাকে।

মাংস ফ্রিজে কতদিন রাখবেন মাংসে সাধারণত জী’বাণু দ্রুত বি’স্তার লাভ করে। তাই মাংস সংরক্ষণের ক্ষেত্রে অবশ্যই কিছু সত’র্কতা অবলম্বন ক’রতে হবে। ১. মাংস রান্না করে রাখলে প্রতিদিনই জ্বাল দিতে হবে। এক্ষেত্রে গরম কালে মাংস ১২ ঘন্টা পর একবার এবং শীত কালে ২৪ ঘন্টা পর একবার জ্বাল দিলেই মাংস ভালো থাকবে।

২. ৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা তার নিচে কাঁচা মাংস ৪ থেকে ৬ দিন রাখা যায়। ৩. জিরো ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রার নিচে রাখলে গরুর কাঁচা মাংস ১২ মাস ভালো থাকবে। ৪. মাংস ফ্রিজে রাখার আগে প্যাকে’টের গায়ে তারিখ লিখে রাখু’ন। এতে মাংসগুলো কতদিন সংরক্ষণ করা হয়েছে সেটা সহজেই বোঝা যাবে।

আরো পড়ুন

বিবাহিত পুরুষদের লিখাটি মনোযোগ দিয়ে পড়ার অনুরোধ রইল!

মানুষকে নিজের প্রতি আকর্ষিত করার তেমন কোনো রুলবুক নেই। কারণ ভিন্ন মানুষ ভিন্ন ভাবনার হন। …